বিএসএমএমইউর উপাচার্যসহ তিনজনের বিরুদ্ধে হাইকোর্টে রুল

নির্দেশনা মতো আদালতের আদেশ পালন না করায় বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) উপাচার্য, রেজিস্ট্রার ও কার্ডিওলজি বিভাগের চেয়ারম্যানের প্রতি আদালত অবমাননার রুল দিয়েছেন হাইকোর্ট। আগামী দুই সপ্তাহের মধ্যে তিনজনকে রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে।

আদালত অবমাননার অভিযোগে করা এক আবেদনের শুনানি নিয়ে রোববার (২০ ফেব্রুয়ারি) হাইকোর্টের বিচারপতি মামনুন রহমান ও বিচারপতি খোন্দকার দিলীরুজ্জামানের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ রুল জারির এ আদেশ দেন।এদিন আদালতে আবেদনের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী মো. ফয়জুল্লাহ। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল বিপুল বাগমার।

বিশ্ববিদ্যালয়ের কার্ডিওলজি বিভাগের অধ্যাপক জাহানারা আরজু আদালত অবমাননার অভিযোগ তুলে উপাচার্যসহ তিনজনের বিরুদ্ধে গত সপ্তাহে এ আবেদন করেছিলেন। সেটিরই শুনানি নিয়ে এ আদেশ দেন আদালত।আবেদনকারীর আইনজীবীর তথ্যমতে, শৌচাগার সংযুক্ত অফিসকক্ষের জন্য বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের কাছে গত বছরের ১০ এপ্রিল আবেদন করেন অধ্যাপক জাহানারা আরজু। এতে ফল না পেয়ে হাইকোর্টে রিট করেন তিনি। রিটের প্রাথমিক শুনানি নিয়ে গত বছরের ৬ ডিসেম্বর হাইকোর্ট রুলসহ আদেশ দেন।

আদেশে হাইকোর্ট জাহানারা আরজুর করা আবেদনটি ১৫ দিনের মধ্যে নিষ্পত্তি করতে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দেন। পাশাপাশি দ্রুত জাহানারা আরজুর জন্য শৌচাগার সংযুক্ত স্বাস্থ্যসম্মত অফিসকক্ষ নিশ্চিত করতে নির্দেশ দেওয়া হয়।হাইকোর্টের ওই আদেশ বাস্তবায়ন না হওয়ায় জাহানারা আরজু আদালত অবমাননার আবেদনটি করেন বলে জানান তাঁর আইনজীবী মো. ফয়জুল্লাহ।

আইনজীবী মো. ফয়জুল্লাহ বলেন, আদালতের আদেশ প্রতিপালন না করায় উপাচার্যসহ তিনজনের বিরুদ্ধে কেন আদালত অবমাননার কার্যক্রম শুরু করা হবে না, তা জানতে চাওয়া হয়েছে দুই সপ্তাহের রুলে।

scroll to top