গণপূর্ত সচিবসহ চার জনের বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার রুল!

ধানমন্ডির আবাসিক এলাকা থেকে অননুমোদিত বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠানগুলো সরাতে উচ্চ আদালতের রায় বাস্তবায়ন না করায় গণপূর্ত সচিব ও রাজউক চেয়ারম্যানসহ ৪ জনের বিরুদ্ধে আদালত অবমানার রুল জারি করেছেন হাইকোর্ট।

আগামী চার সপ্তাহের মধ্যে সংশ্লিষ্টদের এ রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে।এক আবেদনের শুনানি নিয়ে সোমবার (১২ ডিসেম্বর) হাইকোর্টের বিচারপতি জে বি এম হাসান ও বিচারপতি রাজিক আল জলিলের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

আদালতে আজ আবেদনের পক্ষে শুনানিতে ছিলেন জ্যেষ্ঠ আইনজীবী মনজিল মোরসেদ। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল তুষার কান্তি রায়।ধানমন্ডি আবাসিক এলাকার বৈশিষ্ট্য রক্ষার নির্দেশনা চেয়ে সেখানকার দুই বাসিন্দা এম এ মাসুদ এবং এম এ মতিন হাইকোর্টে ২০১১ সালের রিট আবেদন করেন। এ রিটের প্রাথমিক শুনানি নিয়ে ওই বছরের ২ ফেব্রুয়ারি হাইকোর্ট রুল জারি করেন। একই সঙ্গে ধানমন্ডি আবাসিক এলাকায় নতুন স্কুল, কলেজ ও ব্যবসাপ্রতিষ্ঠান স্থাপন ও অনুমোদনের ওপর অন্তর্বর্তীকালীন নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়। রুলের ওপর চূড়ান্ত শুনানি শেষে ২০১২ সালের ১১ জুন এ রায় দেন।

আইনজীবী মনজিল মোসেদ জানান, রায়ে কয়েকটি নির্দেশনা দিয়ে রাজউকসহ বিবাদীদের ধানমন্ডি আবাসিক এলাকা থেকে অননুমোদিত বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠানগুলো অপসারণ করা এবং ম্যাপললিফ ইন্টারন্যাশনাল স্কুলের কয়েকটি শাখা সরিয়ে নেওয়ার নির্দেশনা দেন।এসব নির্দেশনা পালন না করায় মানবাধিকার ও পরিবেশবাদী সংগঠন হিউম্যান রাইটস অ্যান্ড পিস ফর বাংলাদেশের পক্ষে গণপূর্ত সচিব কাজী ওয়াছি উদ্দিন, রাজউক চেয়ারম্যান মো. আনিছুর রহমান মিঞা, সাবেক প্রকৌশলী মো. শাহ আলম, অথরাইজড অফিসার নুরুজ্জামান হোসেনের বিরুদ্ধে আদালত অবমনাননার আবেদন করা হয়। শুনানি শেষে আদালত রুল জারি করেছেন।

scroll to top