১০ বছরের সাজা এড়াতে পাকিস্তানে পালিয়ে ছিলেন ৩৩ বছর

ফেনীর সোনাগাজীতে বিয়ের আশ্বাসে ধর্ষণ ও প্রতারণার ঘটনায় করা মামলায় ১০ বছরের সাজা পেয়েছিলেন আইয়ুব আলী (৫৮)। সেই সাজা থেকে বাঁচতে তিনি ৩৩ বছর পালিয়ে ছিলেন পাকিস্তানে। ৩৩ বছর পালিয়ে থেকেও তাঁর শেষ রক্ষা হয়নি। শেষ পর্যন্ত পুলিশের কাছে ধরা পড়েছেন।

আজ মঙ্গলবার উপজেলার চর দরবেশ ইউনিয়নের পশ্চিম চর দরবেশ এলাকা থেকে আইয়ুব আলীকে গ্রেপ্তার করা হয়। তিনি ওই এলাকার বাসিন্দা। সোনাগাজী মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. খালেদ হোসেন বিষয়টি নিশ্চিত করে প্রথম আলোকে বলেন, গ্রেপ্তারের পর জিজ্ঞাসাবাদ শেষে আইয়ুব আলীকে বিকেলে আদালতের মাধ্যমে ফেনীর কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

থানা-পুলিশ জানায়, ১৯৮৯ সালে বিয়ের আশ্বাসে ধর্ষণ ও প্রতারণার অভিযোগে আইয়ুব আলীর বিরুদ্ধে ফেনীর আদালতে একটি মামলা হয়। ওই মামলায় তাঁকে গ্রেপ্তার করে কারাগারে পাঠায় পুলিশ। পরে জামিনে বের হয়ে আত্মগোপনে চলে যান তিনি। তিনি আর আদালতে হাজির না হয়ে গোপনে পাকিস্তানে চলে যান। দীর্ঘদিন আদালতে হাজির না হওয়ায় ১৯৯১ সালে আদালত তাঁকে দোষী সাব্যস্ত করে ১০ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড দেন।

scroll to top